সংসদে দাঁড়িয়ে জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেন রাঙ্গা

সংসদে দাঁড়িয়ে জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেন রাঙ্গা

নব্বইয়ের দশকে স্বৈরাচারবিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রতীক শহিদ নূর হোসেনকে নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেয়ায় জাতির কাছে বুধবার (১৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ২৭৪ বিধিতে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে ক্ষমা চান রাঙ্গা এবং বলেন, আমি একটা ভুল করেছি এ জন্য এই সংসদে নিঃশর্ত ক্ষমাপ্রার্থী।

রাঙ্গা বলেন, ‘‘১০ নভেম্বর গণতন্ত্র দিবস নিয়ে জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণ একটি ছোট সভা ছিল। বাইরে কোনও মাইক ছিল না। ভেতরে সাউন্ড বক্সের মাধ্যমে আমরা কথা বলি। একই দিনে নূর হোসেন দিবসও ছিল। পুরনো ঢাকা থেকে আমাদের কিছু লোক অনুষ্ঠানে এসেছিলেন। আসার পথে তারা নূর হোসেন চত্বরে শুনতে পান, এরশাদকে গালাগালি করা হচ্ছে। এরশাদের দুই গালে, জুতো মারো তালে তালে’—এ ধরনের কিছু কথাবার্তা শোনার পরে আমাদের এখানে এসে তা বলেন। আমি দলের মহাসচিব হিসেবে তাদের শান্ত থাকতে বলি।’’

জাপা মহাসচিব আরও বলেন, ২০১৪ সালে আমি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করি। গতকাল (মঙ্গলবার) অনেক কথা বলেছেন। আমি মনে করি, তারা আমাকে শাসন করেছেন। আমি একটা ভুল করেছি। এজন্য আমি নূর হোসেনের পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়েছি। এটি নিয়ে বিবৃতিও দিয়েছি। আজ সংসদে দাঁড়িয়ে সবার কাছে ক্ষমা চাই।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কোনও আপত্তিকর মন্তব্য করেননি দাবি করে রাঙ্গা বলেন, আমি প্রতিমন্ত্রী থাকতে এই সংসদে অনেক কথা বলেছি। এই সংসদে দাঁড়িয়ে অজস্রবার জয়বাংলা বলেছি। অজস্রবার জাতির পিতা বলেছি। জাতির পিতা নিয়ে যদি আমি কোনও রকম ভুল বলে থাকি, তার জন্য ক্ষমাপ্রার্থী। নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি।

রাঙ্গা আর বলেন, ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, আমার দল ক্ষমতায় এলেও মন্ত্রী হতে পারতাম না। প্রধানমন্ত্রী আমাকে মন্ত্রী করেছেন। আমাকে অনেক স্নেহ করতেন, ভালো বাসতেন। তার সঙ্গে আমার এই ভালো সম্পর্কই থাকবে বলে মনে করি। কাউকে কটাক্ষ করে কিছু বলতে চাই না। আমার বলায় ভুল হতে পারে।