বেনাপোল ইমিগ্রেশনের কার্যক্রম ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত করার নির্দেশ জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের

গত ৩রা জুলাই জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এক নির্দেশনায় জানানো হয় বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের কার্যক্রম সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হলো। কিন্ত বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের কর্মকর্তাদের অবহেলার কারণে দীর্ঘ ৫ মাসেও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের কার্যক্রম ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত করার নির্দেশ জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের

বেনাপোল চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশন সুত্রে জানাগেছে প্রতিদিন বেনাপোল বন্দর দিয়ে চিকিৎসা, ভ্রমন ও ব্যবসার কাজে প্রায় ৭থেকে ৮হাজার পার্সপোট যাত্রী ভারত গমনাগমন করে থাকে। ভারত-বাংলাদেশ গমনাগমনকারী পার্সপোট যাত্রীরা সরকারের এই সিন্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। পার্সপোষ্ট যাত্রীরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ সিন্ধান্ত বাস্তবায়ন করার আহবান জানান।
একাধিক পার্সপোট যাত্রী বলেন, সরকারের এই সিন্ধান্ত দ্রুত বাস্তবায়ন হলে আমাদের অর্থ ও সময় দুটোয় সাশ্রয় হবে। অনেক সময় সন্ধ্যার দিকে আমাদের কাজ শেষ হলেও বেনাপোল চেকপোষ্ট বন্ধ থাকার কারণ আমরা বাড়ি ফিরতে পারিনা। বাধ্য হয়ে আমাদের একটি রাত হোটেলে থাকতে হয়।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের দাবির প্রেক্ষিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এ সিন্ধান্ত গ্রহন করেছে বলে জানান বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আলহাজ্ব মফিজুর রহমান সজন। তিনি আরো জানান, আমদানি ,রফতানি কারক,সিএন্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ী ও সর্বপরি জন সাধারনের কথা চিন্তা করে আমরা দীর্ঘ দিন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নিকট দাবি জানিয়ে আসছি বেনাপোল চেকপোষ্ট সকাল ৬টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত খোলা রাখার জন্য। অবশেষে গত জুলাই মাসে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড বেনাপোল চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশন সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখার আদেশ জারি করে বেনাপোল কাস্টমস হাউসকে পত্র দেয়। কিন্তু দীর্ঘ ৫ মাস অতিবাহিত হলেও রাজস্ব বোর্ডের আদেশ বাস্তবায়িত হয়নি। এটা অনেক দুঃখ জনক।

বেনাপোল চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহসিন খাঁন পাঠান জানান, যদিও এটা সরকারী সিন্ধান্ত এবং ভারতীয় চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশন পুলিশ রাজি থাকলে আমাদের কোন সমস্যা নেই। আমাদের জনবল সংকট নেই।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চিঠি বাস্তবায়নের জন্য ইতিমধ্যে সংশ্লিস্ট দফতরকে চিঠি দেয়া হয়েছে।